সহযোগী প্রতিষ্ঠানে থাকতে পারবে না ব্যাংকের চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক || প্রকাশ: ২০২২-০৫-১২ ০৮:২৪:০০ || আপডেট: ২০২২-০৫-১২ ০৯:৩১:২০

দেশের তফসিলি কোন ব্যাংকের চেয়ারম্যান অথবা নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের পরিচালকরা একই প্রতিষ্ঠানের সহযোগী প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদে থাকতে পারবে না। বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি’ বিভাগ থেকে এই সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। এই বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মো. আলী আকবর ফরাজী সই করা নির্দেশনাটি দেশের সকল তফসিলি ব্যাংকের শীর্ষ নির্বাহীর কাছে পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়, কোনো ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান বা পর্ষদ সদস্যদের সমন্বয়ে গঠিত পর্ষদের সহায়ক কমিটি যথা নির্বাহী কমিটি, অডিট কমিটি ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে নিযুক্ত কোনো ব্যক্তি ওই ব্যাংকের সাবসিডিয়ারি কোম্পানি বা ব্যাংকের অর্থায়নে গঠিত ও পরিচালিত কোনো কোম্পানি, প্রতিষ্ঠান বা ফাউন্ডেশনের পরিচালনা পর্ষদ বা গভর্নিং বডি, যে নামেই অভিহিত হোক না কেন, এর চেয়ারম্যান, পরিচালক কিংবা সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন না।

ব্যাংকের নীতিনির্ধারণী পদে দায়িত্ব পালনরত এ ধরনের কোনো ব্যক্তি সাবসিডিয়ারি বা সহযোগী প্রতিষ্ঠানের পদে থাকলে চলতি বছরের ৩০ জুনের মধ্যে পদত্যাগ করতে হবে। পদত্যাগের বিষয়টি জুলাইয়ের প্রথম সাত কর্মদিবসের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

পুঁজিবাজারের সব খবর পেতে জয়েন করুন 

Sunbd Newsক্যাপিটাল নিউজক্যাপিটাল ভিউজস্টক নিউজশেয়ারবাজারের খবরা-খবর

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডার পরিচালক বা মনোনীত কিংবা প্রতিনিধি পরিচালক বা স্বতন্ত্র পরিচালক হিসেবে ন্যূনতম এক বছর মেয়াদে দায়িত্ব পালন করলে ওই মেয়াদপূর্তি বা অবসর বা অব্যাহতির পর ওই ব্যক্তি কখনই ওই ব্যাংকের নিয়মিত বা চুক্তিভিত্তিক কোনো পদে নিয়োগ বা নিযুক্ত হতে পারবেন না। ব্যাংকের কোনো পদে এরই মধ্যে কোনো নিয়োগ দেয়া হলে তাকে আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে পদত্যাগ করতে হবে। এ ধরনের পদত্যাগের বিষয়টিও জুলাইয়ের প্রথম সাত কর্মদিবসের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাতে বলা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলেছে, নির্দেশনার বিষয়বস্তু ব্যাংকের পরবর্তী পরিচালনা পর্ষদ সভায় উপস্থাপন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। ব্যাংক কোম্পানি আইন-১৯৯১-এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে নির্দেশনাটি জারি করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এতে বলা হয়, ব্যাংকের পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনায় স্বার্থের সংঘাত পরিহার এবং নিরপেক্ষতা, পেশাগত মান ও সুশাসন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১-এর ২৩(১)(ক) ধারায় কোনো ব্যক্তি কোনো ব্যাংকের পরিচালক হলে একই সময়ে তিনি অন্য কোনো ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বা বীমা কোম্পানির পরিচালক থাকবেন না মর্মে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। অনুরূপভাবে ব্যাংক পরিচালনায় শৃঙ্খলা ও সুশাসন নিশ্চিত করতে ২০২১ সালের ১২ মে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বেশকিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।

এর পরও সুষ্ঠভাবে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ এবং ব্যবস্থাপনা কর্তৃক নিজ নিজ দায়িত্ব পালনে যথাযথ ভূমিকা পালন আবশ্যক বিধায় ব্যাংক পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলা নিশ্চিতকরণের ক্ষেত্রে সৃষ্ট প্রতিবন্ধকতা পরিহার হওয়া বাঞ্ছনীয়। এজন্যই ব্যাংকের পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনায় অধিকতর শৃঙ্খলা ও সুশাসন নিশ্চিত করতে নতুন নির্দেশনাগুলো জারি করা হয়েছে।