অতীত বা ভবিষ্যতে নিয়ে যাবে গুগলের ‘টাইম ট্র্যাভেলিং কার’

প্রকাশ: ২০১৫-১০-২৩ ২০:৩০:২৭ আপডেট: ২০১৫-১০-২৩ ২০:৩৫:০১

google-car-655x360সার্চ ইঞ্জিন সংস্থা গুগলের ‘প্রজেক্ট ফ্লাক্স’ নিয়ে এর আগেও বহু জায়গায় বহু প্রতিবেদন লেখা হয়েছে। কিন্তু সেই প্রতিবেদনের কোথাও গুগল কতৃপক্ষের কোস বক্তব্য বা সংস্থা সূত্রে স্বীকৃত কোনও তথ্য ছিল না। কিন্তু এবার আচমকাই গুগলের এক ট্যুইটে ফাঁস হয়ে গেল এমন এক নথি, যা দেখে স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে গুগল তাদের গবেষণাকে কত এগিয়ে নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে।

আচমকাই গুগলের এক ট্যুইটে এক পিডিএফ ফাইলের লিঙ্ক পোস্ট করা হয় মাইক্রো ব্লগিং সাইটটিতে। সংবাদপত্র দ্য ভার্জের দাবি, সেই লিঙ্কে ক্লিক করলে প্রথমেই একটি মেসেজ দেখাচ্ছে- গোপন নথি। গুগলের বাইরে শেয়ার করবেন না।

কী রয়েছে ১৪ পাতার ওই নথিতে? প্রথম পাতাতেই রয়েছে প্রজেক্টের নাম- প্রজেক্ট ফ্লাক্স। তারপর রয়েছে এই গবেষণার লক্ষ্য কী-সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা।

অতীতে আমরা কেমন ছিলাম, পুরানো সেই সব দিনে ফিরে যেতে যে আমাদের সকলের ইচ্ছা হয়, গুগলের নথিতে তার উপর জোর দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, “টেলিপোর্টেশন আর শুধু কল্পবিজ্ঞানের পাতায় থাকবে না। বছরের পর বছর ইলেক্ট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ার, ঐতিহাসিক, দার্শনিক ও এথিসিস্টদের গবেষণার ফল এই প্রজেক্ট ফ্লাক্স।”

গুগলের নথিতে আপাতত সাতটি ‘প্রোটোটাইপ ক্যাপসুল’-এর ডিজাইন প্রকাশ করা হয়েছে। ২০১৬ সালের মধ্যেই পরীক্ষামূলক উড়ান চালানো হবে বলেও দাবি করা হয়েছে এই নথিতে। নথির লিঙ্কটি নিচে দেওয়া হল। গুগল ট্যুইট করে জানিয়েছে, এই প্রজন্ম নয়া আবিষ্কারকে মেনে নিতে না পারলেও পরবর্তী প্রজন্মের কাছে এটাই হবে সত্যি।

গুগলের সেই টুইট লিংক

গুগলের সেই গোপন রিপোর্ট