৩৯ স্ত্রী ৯৪ সন্তান ও ৩৩ নাতি নিয়ে একই বাড়িতে বসবাস

|| প্রকাশ: ২০১৫-১১-০৮ ১৭:১৭:১৭ || আপডেট: ২০১৫-১১-০৮ ১৭:২০:০১

***EXCLUSIVE*** MIZORAM, INDIA - JANUARY 30: A family photograph of the Ziona family on January 30, 2011 in Baktawang, Mizoram, India. With a total of 181 members, this Indian family residing at Baktawng Village in India's north-east state of Mizoram, is probably the largest in the world. 67-year-old Ziona, who heads the family, lives in a four-storeyed purple mansion with his 39 wives, 94 children and 14 daughter-in-laws and over 40 grandchildren. His mansion called 'Chhuanthar Run', which means 'The House of the New Generation', is the biggest concrete structure in this hilly village of Baktawng, about 80 km from Aizawl, the capital city of Mizoram. There are more than 100 rooms inside the Ziona mansion. PHOTOGRAPH BY RICHARD GRANGE / BARCROFT INDIA UK Office, London. T +44 845 370 2233 W www.barcroftmedia.com USA Office, New York City. T +1 212 564 8159 W www.barcroftusa.com Indian Office, Delhi. T +91 114 653 2118 W www.barcroftindia.com Australasian & Pacific Rim Office, Melbourne. E info@barcroftpacific.com T +613 9510 3188 or +613 9510 0688 W www.barcroftpacific.comএকই বাড়িতে পরিবারের ১৬৭ সদস্য নিয়ে সুখেই আছেন চানা (৬৬)। ভারতের মিজোরাম রাজ্যের প্রত্যন্ত এক গ্রামে বাস করেন তিনি। গ্রামটি বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের কাছে অবস্থিত। তার চারতালা বাড়িতে তাদের থাকার জন্য ১০০টি কক্ষ রয়েছে।
তবে এখানেই থামতে চান না চানা। তিনি তার পরিবারকে এখনো আরো বাড়াতে ইচ্ছুক বলে জানিয়েছেন। আরো অনেক বিয়ে করতে আগ্রহী।

চানার স্ত্রী ৩৯ জন। তিনি চান সব সময়ই তার পাশে সাত বা আটজন স্ত্রী থাকুক। তিনি এক বছরেই ১০টি বিয়ে করেছেন। তার স্ত্রীদের সন্তান ৯৪ জন। আর নাতি-পুতি ৩৩ জন।

চানের নিজস্ব শোয়ার ঘরের চারপাশে তার স্ত্রীদের শয়ন কক্ষগুলো। আর তার ছেলেরা একই ভবনের অন্যান্য কক্ষে তাদের স্ত্রীদের নিয়ে বসবাস করেন। তবে গোটা পরিবার একই রান্নাঘর ব্যবহার করে। স্ত্রীরাই এত বড় পরিবারের খাবার রান্না করার কাজ সমাধান করে থাকেন। পরিবারটির দৈনিক চাল লাগে একশ’ পাউন্ড এবং আলু লাগে ১৩০ পাউন্ড।

চানার মেয়েরা বাড়িঘর পরিষ্কার করার কাজ করে থাকেন। আর পুরুষ লোকেরা জমি চাষাবাদ ও গবাদিপশু পালনসহ বাড়ির অন্যান্য কাজ করেন। চানা বলেন, আমাকে যত্ন ও আমার বাড়ির কাজকর্ম দেখাশোনা করার জন্য বাড়িতে যথেষ্ট লোকজন রয়েছে। আমি এ জন্য নিজেকে ভাগ্যবান লোক বলে মনে করি।

‘চানা’ নামে পরিচিত স্থানীয় খ্রিষ্টান ধর্মীয় গোষ্ঠীর প্রধান চানা। এ গোষ্ঠী বহুবিবাহ প্রথায় বিশ্বাসী। ১৯৪২ সালে গোষ্ঠীটি গঠিত হয়। বর্তমানে তাদের সদস্য রয়েছে বড় বড় ৪০০টি পরিবার। তারা বিশ্বাস করে শিগগিরই যিশু খ্রিষ্ট বিশ্ব শাসন করবেন।
চানা ১৭ বছর বয়সে প্রথম বিয়ে করেন তার চেয়ে তিন বছরের বড় এক রমণীকে। পরিবারের নিজস্ব সম্পত্তি ও মাঝে মধ্যে তার অনুসারীদের দানে তার সংসার চলে।